Home / এক্সক্লুসিভ / এইবার বুঝেন; চড়ুই পাখি উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস, তাও আবার বাংলাদেশে

এইবার বুঝেন; চড়ুই পাখি উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস, তাও আবার বাংলাদেশে

ভোরের আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গে কিচিরমিচির গানে চারপাশকে জাগিয়ে তোলে যে পাখি তার নাম চড়ুই। চঞ্চল প্রকৃতির এ পাখির খুনসুটি যেন লেগেই থাকে সারাক্ষণ। গতকাল দুপুরে রাজশাহী নগরীর আলুপট্টি মোড়ে দুটি চড়ুই পাখি খুনসুটি করতে করতে একটি আটকে যায় বিদ্যুতের তারের সাথে ঘুড়ির সুতোয়। আটকে যাওয়া পাখিটির মুক্ত হতে প্রাণান্ত চেষ্টা করেও বারবারই ব্যর্থ হয়। এদিকে সঙ্গী পাখিটি উড়াউড়ি আর চিৎকার করতে থাকে।

হঠাৎ বিষয়টি চোখে পড়ে সাংবাদিক সৌরভ হাবিবের। ত্রিশ ফুট উপরে থাকা পাখিটিকে নিজেই উদ্ধারে চেষ্টা করে ব্যর্থ হোন। উপায় না দেখে ফোন করেন ফায়ার সার্ভিসে। খবর পাওয়ার দশ মিনিটের মধ্যেই দুটি গাড়ী নিয়ে হাজির হয় ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। দুটি ইউনিটে দশজন সদস্য মই দিয়ে উঠে মুক্ত করেন পাখিটিকে।

সুতোয় আটকে পড়া চড়ুই মুক্ত হয়ে খুঁজতে থাকেন সঙ্গী। দেখতে পেয়ে তুমুল উৎসাহে কিচিরমিচির। শব্দ করে যেন জানান দিচ্ছিল মুক্তি পেয়েছি। এরপর হাওয়ার ওপরে পালক ছড়িয়ে উড়ে যায় দিগন্তে। এদিকে ঘটনাস্থলে এ দৃশ্য দেখতে থাকা উৎসুক শত শত মানুষ হাততালি দিয়ে উল্লাস প্রকাশ করে।

ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন আফিসার মেহেরুল ইসলাম বলেন, আমরা প্রত্যেকটা প্রাণেরই সমান মূল্য দেই। এটা আমাদের কর্তব্য। পাখি উদ্ধারে দুটি ইউনিটের ১০ জন সদস্য অংশ নেওয়ায় বিব্রত হবার কোন কারণ নেই।

সাংবাদিক সৌরভ হাবিব বলেন, ফায়ার সার্ভিসের কাজে আমি অভিভূত। পাখিটিকে মুক্ত করার আকুতি থেকে ফোন দিই। তারা এত দ্রুত আসবে আমার ধারণাও ছিল না। তিনি বলেন, ‘একটি প্রাণ সেটা যারই হোক, যত ক্ষুদ্রই হোক না কেনো, তাকে বাঁচানো প্রতিটি মানুষেরই দায়িত্ব হওয়া উচিত।