Home / আন্তর্জাতিক / এবার ইমরান খানকে জুতা নিক্ষেপ

এবার ইমরান খানকে জুতা নিক্ষেপ

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের পর এবার তেহরিকে ইনসাফের (পিটিআই) প্রধান ইমরান খানের দিকেও জুতা ছুড়ে মারা হলো।

মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) রাতে পাকিস্তানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় শহর গুজরাতে একটি জনসভায় ভাষণ দেওয়ার সময় এই জুতা নিক্ষেপ করা হয়। তবে সেই জুতা বিশ্বকাপ জয়ী পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়কের গায়ে না লেগে পাশে দাঁড়িয়ে থাকা তেহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) দলের আরেক নেতা আলিম খানের বুকে আঘাত হানে।

এরপরই ইমরান খান বক্তব্য বন্ধ করে ওই মুহূর্তে সমাবেশ স্থান ত্যাগ করেন। এ সময় তেহরিকে ইনসাফের কর্মীরা তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলে। তবে তাকে মুসলিম লীগের একজন নেতা এ কাজের জন্য পাঠিয়েছে বলে সে অভিযোগ করে। খবর পাকিস্তান ট্রিবিউনের।

চলতি মাসে পাকিস্তানের রাজনৈতিকদের ওপর জনগণের পক্ষ থেকে এটি ছিল তৃতীয় হামলা এবং দ্বিতীয় জুতা নিক্ষেপ।

এদিকে এ রকম ঘটনায় দেশটির বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রধানরা কঠোর সমালোচনা করেছেন-

পিপলস পার্টির সংসদীয় প্রধান ও সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারি এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, নওয়াজ শরীফের সঙ্গে এমন আচরণ গণতান্ত্রিক মানসিকতার পরিপন্থী। রাজনীতিতে সর্বদা ধৈর্য্য ও সহনশীলতা সর্বাগ্রে রাখা প্রয়োজন।

পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি বলেন, এ ঘটনায় রাজনৈতিক নেতাদের সম্মান রক্ষায় ঝুঁকি তৈরি করবে। ধৈর্য্যরে সংস্কৃতিতে আসা প্রয়োজন।

পাকিস্তানের তেহরিকে ইনসাফের চেয়ারম্যান ইমরান খান বলেন, কারও ওপর জুতা নিক্ষেপ কোনো ভালো কাজ নয়। আনন্দের বিষয় হচ্ছে এ কাজে তেহরিকে ইনসাফের কেউ জড়িত নয়।

পুশতুন খা মিল্লি আওয়ামী পার্টির চেয়ারম্যান মাহমুদ খান বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে কাজ করা উচিত। এমন অবস্থায় কোনো রাজনৈতিক গ্রুপই জনসভা করতে পারবে না।

আওয়ামী ন্যাশনাল পার্টির প্রধান ইসফান্দার ইয়ারুলি বলেন, এ ধারা বন্ধ না হলে কোনো নেতাই তা থেকে বাদ যাবে না। রাজনীতিবিদদের ওপর আবশ্যক তারা তাদের কর্মীদের রাজনৈতিক প্রশিক্ষণ দেবে।

জামায়াতে ইসলাম পাকিস্তানের সিনেটর সিরাজুল হক বলেন, এ ধরণের বেয়াদবি কোনো ভাবেই সহ্য করা যায় না। আমাদের সংস্কৃতি এ ধরণের আচরণ সমর্থণ দেয় না। খবর ডেইলি পাকিস্তান, জিও নিউজ।

উল্লেখ্য, রবিবার (১১ মার্চ) ক্ষমতাচ্যুত সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফে লাহোরে এক মৃত্যুবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার সময় তার দিকে জুতা ছুড়ে মারা হয়। এর আগের দিন অর্থাৎ শনিবার (১০ মার্চ) পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী খাজা আসিফ দলের কর্মী সম্মেলনে বক্তব্য রাখার সময় শত শত মানুষের চোখের সামনে তার মুখে চুনকালি মাখিয়ে দেওয়া হয়।