Home / টেক ওয়ার্ল্ড / ব্রেকিং : খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না মার্ক জাকারবার্গকে

ব্রেকিং : খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না মার্ক জাকারবার্গকে

ফেইসবুকে এখন চরম সংকট চলছে। খাদের কিনারা থেকে সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্টটিকে টেনে তোলার দায়িত্ব এখন প্রতিষ্ঠান প্রধান মার্ক জাকারবার্গের।ব্যবহারকারীদেরকে না জানিয়ে তাদের ব্যক্তিগত তথ্য ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার হাতে তুলে দেওয়ায় জনরোষের মুখে পড়েছে তারা।

এরই ধারাবাহিকতায় শেয়ারে ধস নামছে, ব্যবহারকারীরা ডিলিট ফেইসবুক হ্যাশট্যাগ লিখে পোস্ট দিচ্ছেন আর হতাশায় ডুবেছেন রাজনীতিবিদরা।

কিন্তু সব আলোচনা, সমালোচনা ও প্রশ্ন এড়িয়ে নিজেকে আড়াল করে রেখেছেন মার্ক জাকারবার্গ। এমন কি কর্মীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত অভ্যন্তরীণ বৈঠকেও তিনি ছিলেন অনুপস্থিত। তাই বিশ্বের নামি দামী সংবাদ মাধ্যমগুলোর এখন একটাই প্রশ্ন, কোথায় গেলেন জাকারবার্গ?

এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্রের কাছ থেকে আনুষ্ঠানিক একটি বিবৃতি পাওয়া গেছে। যাতে লেখা আছে, জাকারবার্গ, শেরিল ও তাদের দল দিন রাত ২৪ ঘণ্টাই এ বিষয়ে তথ্য যোগার করার কাজ করছেন।

পরবর্তীতে কি ধরনের পদক্ষেপ নিলে তা যথাযথ হবে সেবিষয়ে আলোচনার ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। কারণ তারা জানেন চলমান ইস্যুটি কতখানি গুরুত্বপূর্ণ। পুরো কোম্পানিই ক্ষুব্ধ, আমরা প্রতারিত হয়েছি। যেকোনো মূল্যে আমরা ব্যবহারকারীদের তথ্যের সুরক্ষা দেবো।

এর আগে ফেইসবুক ব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ চালিয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মার্ক জাকারবার্গ বলেন, এটা পাগলের প্রলাপ। এর মাসখানেক পরেই তিনি তার বক্তব্য প্রত্যাহার করে নেন এবং ভুয়া খবর ছড়ানোর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার ঘোষণা দেন।

তাই এবারও যাতে বক্তব্য ফিরিয়ে নেওয়ার পরিস্থিতিতে না পরতে হয় তা নিশ্চিত করতেই হয়তো তথ্য-উপাত্ত যোগার করতে ব্যস্ত ফেইসবুক প্রধান।

উল্লেখ্য,পাঁচ কোটি ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার হাতে তুলে দেওয়ার ঘটনায় তোপের মুখে পড়েছে ফেইসবুক।২০১৫ সালের শুরুতে এই ডেটা মুছে দিতে ফেইসবুকের পক্ষ থেকে দাবি জানানো হলেও সেগুলো রেখে দেয় রাজনৈতিক তথ্য বিশ্লেষণ করার ফার্মটি । পরে বিপুল এসব তথ্য মার্কিন নির্বাচনের সময় ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে।